× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

মতলবে মেঘনা-ধনাগোদা নদীর উপর হচ্ছে ঝুলন্ত সেতু

তুহিন ফয়েজ, মতলব (চাঁদপুর)

৩১ অক্টোবর ২০২৩, ১৬:৫০ পিএম

অনেক জল্পনা-কল্পনা, আলোচনা-সমালোচনার অবসান ঘটিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একনেক সভায় মঙ্গলবার মতলব উত্তর উপজেলাবাসীর বহুল কাঙ্ক্ষিত ‘ভবেরচর টু কালিপুর’ সংযোগ সেতুটি অনুমোদিত হয়েছে। সেতুটি নির্মাণের ফলে মতলব উত্তর উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থায় অনন্য মাইলফলক সৃষ্টি হবে।

বাংলাদেশে এই প্রথম চার হাজার একশ চুয়াত্তর কোটি সাতষট্টি লক্ষ ছিয়া নব্বই হাজার টাকা ব্যায়ে গজারিয়া মতলব ঝুলন্ত সেতু প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় পাস হলো ৷

একনেক সভায় অনুমোদিত হওয়ায় মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভার মেয়র লায়ন আলহাজ্ব মো. আরিফ উল্লাহ সরকারের নেতৃত্বে, মোহনপুর ইউনিয়নে প্যানেল চেয়ারম্যান বিল্লাল তপদারের নেতৃত্বে, ফরাজীকান্দি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান রেজাউল করিমের নেতৃত্বে এবং উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে আনন্দ মিছিল করেছেন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ৷

দেশে চার লেন বিশিষ্ট প্রথমবারের মতো ঝুলন্ত সেতু নির্মাণ হতে যাচ্ছে চাঁদপুরের মতলব উত্তরে। এতে করে রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সড়কপথে চাঁদপুরের সঙ্গে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরত্ব কমে যাবে। মেঘনা ও ধনাগোদা নদীর ওপর এই সেতু নির্মাণের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে গত ৭ সেপ্টেম্বর পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে আলোচ্য প্রকল্পটির প্রস্তাব তুলে ধরেন সেতু বিভাগের যুগ্ম সচিব (উন্নয়ন) রহিমা আক্তার। 

জানা যায়, ভারতের রাজিব গান্ধী সমুদ্র সেতু, চীনের সুটং ইয়াংজি নদী সেতু, ফ্রান্সের মিলাউ ভায়াডাক্ট, কিংবা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো-ওকল্যান্ড বে ব্রিজের মতো বাংলাদেশেও কেবল স্টেড বা ঝুলন্ত (তারের) সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা অনুযায়ী মতলব -গজারিয়া ভবেরচর সংযোগ সেতু এটি। সেতুটি ‘কেবল স্টেড সেতু’- যা বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে।

সেতু বিভাগের কর্মকর্তারা বলেছেন, বর্তমানে চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলা ও মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার মধ্যে নৌপথে ইঞ্জিন বোট ব্যতীত বিকল্প কোনো সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা নেই।

যাতায়াতের জন্য এ ব্যবস্থা খুবই অপর্যাপ্ত, সময়সাপেক্ষ এবং ঝুঁকিপূর্ণ। উপরন্তু চাঁদপুর, লক্ষ্মীপুর এবং ভোলার উপকূলীয় এলাকা হতে কাজের সন্ধানে প্রতিদিন বিপুল সংখ্যক মানুষ রাজধানী ঢাকাসহ নারায়ণগঞ্জ এবং পার্শ্ববর্তী অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং শিল্পনগরীতে যাতায়াত করেন। এদিকে সেতুটি নির্মাণ হলে ওই তিন জেলার মানুষ সহজে এবং স্বল্প সময়ে রাজধানী ঢাকাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় যাওয়া-আসা করতে পারবেন। 

এ ছাড়া সেতুটির মাধ্যমে গজারিয়া ও ভবেরচর হয়ে চাঁদপুর ও ঢাকার মধ্যে ভারী যানবাহন চলাচলের বিকল্প পথ তৈরি হবে। বর্তমানে চাঁদপুর থেকে ভবেরচর পর্যন্ত বিদ্যমান সরু এবং আঁকাবাঁকা পথের দূরত্ব ৫২ কি.মি.। প্রস্তাবিত সেতুটি নির্মিত হলে বর্ণিত পথের দূরত্ব হবে ৩৫.৬ কি.মি.। এতে ১৬.৪ কি.মি. ভ্রমণ দূরত্ব হ্রাস পাবে।  এর ফলে প্রতিদিন চাঁদপুর থেকে ঢাকায় যাতায়াতের মাধ্যমে যাত্রীরা বিভিন্ন অফিস, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতালসহ অন্যান্য কর্মস্থলে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। ফলে আবাসন এর ক্ষেত্রে ঢাকা শহরের ওপর জনসংখ্যার চাপ কমবে। অন্যদিকে সেতুটি দূরত্ব নির্মাণের জন্য পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম, বিদেশি পরামর্শক, সচিব, সেতু কর্তৃপক্ষ নির্মাণের স্থান এলাকায় গত একবছরে কয়েকবার পরিদর্শন করেছেন।

এ বিষয় পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, মতলব-গজারিয়া ভবেরচর সংযোগ সেতু হবে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ তারের ঝুলন্ত একটি দৃষ্টিনন্দন সেতু। সেতু নির্মাণ বাস্তবায়নের জন্য জোরালো কার্যক্রম চলছে। আর সেতুটি নির্মাণের ফলে পাল্টে যাবে চাঁদপুর সহ কয়েকটি জেলার উন্নয়ন চিত্র।

সেতুটি  বাস্তবায়নের জন্য  চাঁদপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল ৫ বার সংসদে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে সেতুর গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, আমি সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বরাবর সেতুর জন্য ডিওলেটার দেওয়ার পর ওনি সেতু বিভাগের সচিব মনজুরুল আলম এবং যুগ্ম সচিব ভিখারদ্দৌলা চৌধুরীকে সেতুটি দ্রুত বাস্তবায়নের পক্রিয়া এগিয়ে নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন।

তিনি আরো বলেন সেতুটি নির্মাণ হলে সর্বসাধারণের  ভাগ্যের পরিবর্তন হবে এবং জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন হবে,

এডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল এমপি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একনেক সভায় সেতুটি পাস হওয়ার জন্য আমি মতলববাসীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই আরো ধন্যবাদ জানাই সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে,

নুরুল আমিন রুহুল আরো বলেন, এই সেতুটি দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য আগামী দ্বাদশ  জাতীয় সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনার সরকারের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকারের  কোন বিকল্প নেই  এ জন্য তিনি নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার আহ্বান জানান এবং মতলববাসীকে শুকরানা আদায়ের জন্য মহান আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করার আহ্বান জানান ৷

Sangbad Sarabela

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । [email protected], বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.