অধ্যাপক হারুন অর রশিদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ‘বোস অধ্যাপক’ ড. এ এম হারুন অর রশিদের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এক শোক বার্তায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অধ্যাপক হারুন অর রশিদ শুধু একজন পদার্থবিজ্ঞানীই নয়, বিজ্ঞান গবেষণায় একজন নিবেদিতপ্রাণ ব্যক্তি ছিলেন। নিয়মিত গবেষণার পাশাপাশি তিনি পদার্থবিজ্ঞান শিক্ষায় বিশেষ করে বাংলা ভাষায় পদার্থবিজ্ঞান শিক্ষায় অনবদ্য ভূমিকা রেখেছেন। তাঁর মৃত্যু দেশের বিজ্ঞান শিক্ষা ও গবেষণার ক্ষেত্রে বিরাট শূন্যতার সৃষ্টি করেছে।’

প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল শনিবার মারা যান অধ্যাপক এ এম হারুন অর রশীদ (৮৮)।

পদার্থবিজ্ঞানে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯৯১ সালে তিনি একুশে পদকে ভূষিত হন। ২০০৯ সালে তিনি বাংলাদেশ সরকারের সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার স্বাধীনতা পুরস্কার লাভ করেন।

১৯৫৫ থেকে ১৯৬২ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে শিক্ষকতা করেন অধ্যাপক হারুন অর রশীদ। ১৯৬২ থেকে ১৯৬৭ সাল পর্যন্ত তিনি পরমাণু শক্তি কমিশনে মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ১৯৬৭ সালে তিনি ইসলামাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বীয় পদার্থবিজ্ঞান বিভাগে অধ্যাপক হিসেবে পুনরায় শিক্ষকতা শুরু করেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি ইসলামাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতায় ইস্তফা দেন। স্বাধীনতার পর তিনি আবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেন।

আরও পড়ুনঃ  কুমিল্লায় ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত যুবকের মৃত্যু

বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায়ই তিনি অনেক বই লিখেছেন। বইগুলোর মধ্যে রয়েছে আইনস্টাইন ও আপেক্ষিকতা তত্ত্ব, বিংশ শতাব্দীর বিজ্ঞান, পদার্থবিজ্ঞানে বিপ্লব।

 

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সংবাদ সারাবেলা