লালমনিরহাটে মামলা তুলে নিতে বাদীকে হত্যার চেষ্টা

|| সংবাদদাতা,  লালমনিরহাট ||

লালমনিরহাটের আদিতমারী  উপজেলার দৈলজোড় গ্রামের এক গৃহবধূকে অমানবিক  নির্যাতনের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলা তুলে নিতে মারপিট ও হত্যা চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে।

১৯ জুন রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার বুকশিলা ব্রীজের উপর বাদীকে মামলা তুলে নিতে মারপিট করার ঘটনা ঘটে। 

জানা গেছে , কালীগঞ্জ উপজেলার গোড়ল গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের মেয়ে লিপি খাতুনের সাথে পাশ্ববর্তী আদিতমারী উপজেলার পশ্চিম দৈলজোড় গ্রামের নওশাদ আলীর ছেলে আজাহার আলীর সাথে ২০১৪ সালের ১৬ মে রেজিষ্ট্রি মুলে বিয়ে সম্পুর্ন হয়। বিয়ের সময় মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে দুই লক্ষ টাকা যৌতুকও দেন ছেলেকে। তাদের সংসারে একটি সন্তানও রয়েছে। বিয়ের তিন বছর ভালই কাটে তাদের সংসার জীবন।  কিছুদিন পর তার স্বামী আজাহার ও তার পরিবারের লোকজন যৌতুকবাবদ আরও ১ লক্ষ টাকা দাবী করে। যৌতুকের দাবিকৃত টাকা দিতে অস্বীকার করায় ওই গৃহবধূর উপর নেমে আসে অমানবিক  নির্যাতন। 

চলতি বছরের ১৫ জানুয়ারি ওই স্বামী গৃহবধূকে মারপিট করে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেন। স্বামীর বাড়ীর এমন নির্যাতন সইতে না পেরে ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে স্বামীসহ তিনজনকে আসামী করে  গত ১ ফেব্রুয়ারি  লালমনিরহাট আদালতে একটি মামলা করেন।

আরও পড়ুনঃ  মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক সাংবাদিক সুমন মাহমুদ আর নেই

২৬ জুন ওই গৃহবধূর বাবা সাংবাদিকদের জানান, গত ১৯ জুন বাদী রংপুর মেডিকেল হইতে অটোরিকশা যোগে বাড়ীতে ফেরার পথে মুল আসামি সহ অপরিচিত কয়েকজন কালীগঞ্জ উপজেলার বুকশিলা ব্রীজে বাদীকে আটক করে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য  মারপিট করে বিভিন্ন স্থানে ফুলা জখম করে প্রাণনাশের হুমকি দেন। এসময় অটোরিকশার ড্রাইভারকে ও  মারপিট করে এবং অটোরিকশাটি ভাংচুর করে।

এসময় অটোরিকশার এক যাত্রী পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাদীকেসহ তিনজনকে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করে। যাহার ভর্তি রেজিঃ নং (বাদী) ৬৯৮৪/৪৫ বেড নং অতিঃ ২৯। জখমি রিনা ৬৯৮৬/৪৭ বেড নং অতিঃ ২৮। অটোরিকশার ড্রাইভার ভর্তি রেজিঃ নং ৬৯৮৫/৪০ বেড নং অতিঃ ৫।

এ ঘটনায় বাদী আরও দুইজনসহ অজ্ঞাতনামা ৬ জনকে আসামী করে কালীগঞ্জ থানায় আরও একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ২৯।

 কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সংবাদ সারাবেলা