বিশেষ অনুমতিতে ভারত থেকে দেশে ফিরছে মানুষ

|| সারাবেলা প্রতিনিধি, শার্শা (যশোর) ||

ভারতে করোনার নতুন ধরন রোধে বাংলাদেশ সরকার দুই দেশের সীমান্ত দিয়ে ১৪ দিন যাতায়াত বন্ধ ঘোষণা করেছেন। ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশি যাত্রীরা দূতাবাসের বিশেষ অনুমতিতে বেনাপোল ইমিগ্রেশন দিয়ে দেশে ফিরছেন। তবে নতুন করে পাসপোর্ট যাত্রীদের ভারত ও বাংলাদেশ ভ্রমণ এখনও পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে।

বিশেষ অনুমতিতে ভারত থেকে বাংলাদেশে ফেরত আসা পাসপোর্ট যাত্রীরা বলেন, অন্তত একদিন আগে যাত্রী চলাচল বন্ধের ঘোষণা দেয়া উচিত ছিল। তাহলে ইমিগ্রেশনের সামনে এসে আমাদের এই ভোগান্তিতে পড়তে হতো না।

ভারতে আটকে থাকা যাত্রীদের মধ্যে বেশিরভাগ রোগী এবং শিক্ষার্থী। গত দুইদিন ধরে আটকে থাকায় অনেক রোগী অসুস্থ হয়ে পড়ছেন বলে জানা যায়।

ভারতের পেট্রাপোলে আটকা পড়া তিন শতাধিক যাত্রীর মধ্যে ৭০ বাংলাদেশি  বিশেষ অনুমতিতে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে দেশে ফিরেছেন।

গত মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) দেশে ফিরেছেন তারা। ইমিগ্রেশন ও স্বাস্থ্য বিভাগের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের বেনাপোল বাজারস্থ রজনী গন্ধা আবাসিক হোটেলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তারা নিজ খরচে সেখানে অবস্থান করবেন। কোলকাতায় অবস্থিত বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশন অফিস থেকে এনওসি (অনাপত্তিপত্র) নিয়ে দেশে ফেরেন তারা।

আরও পড়ুনঃ  উলিপুরে বিনামূল্যে কৃষিযন্ত্র বিতরণ

শার্শা উপজেলা সহকারী ভূমি রাসনা শারমিন মিথি জানায়, বিশেষ অনুমতিতে যারা ভারত থেকে দেশে ফিরছেন তাদেরকে আমরা বেনাপোল ইমিগ্রেশন থেকে রিছিব করে আবাসিক হোটেলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে রাখছি।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহসান হাবিব জানান, ভারতে করোনার নতুন ধরন সংক্রমণ রোধে বাংলাদেশ সরকার গত ২৬ এপ্রিল থেকে আগামী ৮ মে পর্যন্ত স্থলপথে দুই দেশের মধ্যে পাসপোর্টধারী যাত্রী যাতায়াত বন্ধ ঘোষণা করে। তবে নিষেধাজ্ঞাপত্রে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশি দূতাবাসের ছাড়পত্র থাকলে তাদের আসা যাওয়ার সুযোগ থাকবে।

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সংবাদ সারাবেলা