এক বেলা খাবার পেলো রাজধানীর সোহরাওয়ার্দি উদ্যানের শিশুরা

|| সারাবেলা প্রতিনিধি, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ||

কোনো শিশুই পথশিশু হয়ে জন্মায় না! আমাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার গ্যাঁড়াকলে পরে আজ তাদের হতে হয় ফুল বিক্রেতা, বাদাম বিক্রেতা আরো কতো কি! রাস্তার ধারে ধারে অসহায় সেসব চাহনিগুলোয় শুধু একটাই হাহাকার আর্তনাদ; এক মুঠো ভাত চাই!

‘পেটের দায় বড় দায়’ এ বাস্তবের সাথে খুব আগেই পরিচিত হয়ে যায় এসব শিশুরা! আর ঠিক এইসব অসহায় নিষ্পাপ মুখগুলোর জন্য গত ৫ই ফেব্রুয়ারি একবেলা খাবারের ব্যবস্থা করে ‘শরৎ৭১’

“একাত্তরের চেতনাই হোক দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মূলমন্ত্র” -এই স্লোগানকে সামনে রেখে মানবসেবায় কাজ করে যাচ্ছে শরৎ৭১। অসহায় দুস্থ শিশুদের উন্নয়নে ও গ্রামীণ নারীদের দুরাবস্থা দূর করতে তাদের উদ্যোক্তাকরণের পাশাপাশি আরও ১১ টি সেবামূলক লক্ষ্যে কাজ করার উদ্দেশ্যে ২০২০ সালের ১লা ডিসেম্বর শরৎ৭১ এর প্রতিষ্ঠা করেন প্রতিষ্ঠাতা প্রকৌশলী মেহেদি হাসান।

“৭১- এর সোনার বাংলায় অনাহারে থাকবে না একটি শিশু” সেই ধারাবাহিকতায় গত ৫ই ফেব্রুয়ারির রোদেলা দুপুরে ঢাকার সোহরাওয়ার্দি উদ্যানে পথশিশুদের খাবার দেয় শরৎ৭১।

এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন শরৎ৭১ এর প্রতিষ্ঠাতা প্রকৌশলী মেহেদী হাসান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন রুমন খান, এবং ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের এইচ আর এক্সিকিউটিভসহ শরৎ৭১ এর টিম লিডার রওশন জাহান সুমাইয়া, ফাইরুজ আতকিয়া অহনা, নায়্যার খান ও এক্সিকিউটিভ টিম মেম্বারা।

আরও পড়ুনঃ  চুনারুঘাটে রাস্তা ও জমি দখলের অভিযোগ পত্রিকা সম্পাদকের স্ত্রীর বিরুদ্ধে
ছবি: সংবাদ সারাবেলা

এসময় প্রতিষ্ঠাতা মেহেদী হাসান বলেন, “মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে নিয়ে শিক্ষা সমৃদ্ধ ও মানবিক দেশ গঠন আমাদের লক্ষ্য”। দুপুরশেষে বিকেলের শেষ আলোর মতো শিশুদের মুখে ছিল এক আনন্দঝলকানির হাসি! আর শরৎ৭১ এর প্রাপ্তির ঝোলায় যুক্ত হয় আরো একগুচ্ছ ভালবাসা।

 

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সংবাদ সারাবেলা