ভারতের টিকা উৎপাদক সেরামে আগুন মারা গেছেন ৫ জন

|| বার্তা সারাবেলা ||

ভারতের টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটে আগুনে পাঁচজন মারা গেছেন। দেশটির পুনেতে সেরাম ইন্সটিটিউটের একটি নির্মাণাধীন ভবনে বৃহস্পতিবার এই আগুন লাগে। ভবনের ভেতরে আরও লোকজন আটকে  পড়েছে বলে জানানো হয়েছে। বৃটেনের অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনাভাইরাসের টিকা উৎপাদান হচ্ছে এই সেরাম ইনস্টিউটে। বৃহস্পতিবার বেলা ৩টার দিকে এই ভবনটিতে আগুন লাগে।

ছবি: ইন্ডিয়া টুডের সৌজন্যে

আগুনের শুরুতে সেরাম ইনস্টিউটের সিইও আদর পূনাওয়ালা জানিয়েছিলেন এতে কেউ মারা যাননি। কেউ গুরুতর আহতও হননি। এমনকি টিকা উৎপাদনেও এই আগুনের কোনো প্রভাব পড়বে না। তবে পরে তিনিই টুইটার বার্তায় বলেন, ‘আমরা দুঃখজনক খবর পেলাম। আগুনে কয়েকজন মারা গেছেন। তাদের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।’সেরামে আগুন নেভাতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস। স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের একজন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, ফায়ার সার্ভিসে ছয়টি ইউনিট আগুন নেভাতে কাজ করছে।

মহারাষ্ট্রের পুণের মঞ্জরী এলাকায় একশ একরের বেশি জায়গা জুড়ে গড়ে তোলা সেরাম ইনস্টিউট অব ইনডিয়া পুরো বিশ্বেই টিকা উৎপাদনকারী সবচেয়ে সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান।

রয়টার্স লিখেছে, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনাভাইরাসের টিকার ৫ কোটি ডোজ সেখানে প্রতি মাসে উৎপাদন করা হচ্ছে, যার দিকে তাকিয়ে আছে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের বহু দেশ। বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সেরাম। প্রতিষ্ঠানটি অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি করোনার টিকা ‘কোভিশিল্ড’নামে উৎপাদন করছে।

আরও পড়ুনঃ  ভারতে লকডাউনের মধ্যেই চালু হচ্ছে যাত্রীবাহী ট্রেন

এদিকে সেরামের উৎপাদিত করোনার টিকার প্রয়োগ ভারতে শুরু হয়েছে। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে ২০ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড বাংলাদেশকে দেওয়া হয়েছে। যা ইতোমধ্যেই বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে।

এই সম্পর্কিত আরও সংবাদ

সংবাদ সারাবেলা